শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৩০ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ ::
ড্রেজার শ্রমিকের ইটের আঘাতে কুশিয়ারা নদীতে জেলে নিখোঁজ শাবিতে গভীর রাতে হাজারো শিক্ষার্থীর মশাল মিছিল শাবির ঘটনায় যেন আগুনে ঘি ঢালা না হয়-পরিকল্পনামন্ত্রী অনশন থেকে হাসপাতালে শাবির ছয় শিক্ষার্থী  ড. মোমেনকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো-বাইডেনের শুভেচ্ছা কমলগঞ্জে ভোক্তা অধিদপ্তরের জরিমানা অনশনে অসুস্থ হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা, শিক্ষকদের আলোচনার প্রস্তাব নাকচ শাবির ভিসির কুরুচিপূর্ণ-অবমাননাকর বক্তব্য প্রত্যাহারে আইনি নোটিশ র‍্যাবকে শান্তিরক্ষা মিশন থেকে বাদ দিতে জাতিসংঘে চিঠি আইসিসি বর্ষসেরা একাদশে টাইগারদের দাপট ভালো পরিবেশের জন্য ভালো সম্পর্ক গুরুত্বপূর্ণ: সেনাপ্রধান ড. মোমেনের নেতৃত্বে সিলেটে আসছে যুক্তরাজ্যের প্রতিনিধি দল খালেদা জিয়া ও খন্দকার আব্দুল মুক্তাদিরের রোগমুক্তিতে দোয়া মাহফিল তাহিরপুরে করোনা সংক্রমন প্রতিরোধে পুলিশের মাইকিং শাবিতে উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে অনশন শুরু শিক্ষার্থীদের

নাহিদের ঘাঁটিতে নৌকার বেহাল দশা!

নতুন সিলেট প্রতিবেদক:
  • আপডেট : বুধবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২১
নাহিদের ঘাঁটিতে নৌকার বেহাল দশা! - Natun Sylhet

`সর্বনিম্ন ভোট নৌকায়, ৪টির জামানত বাজেয়াপ্ত’

সিলেট-৬ আসনের অন্তর্গত গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার। রাজধানীর গুলশানের সঙ্গে তুলনা করা হয় বিয়ানীবাজারের মাটির দাম। আর পাশ্ববর্তী গোলাপগঞ্জবাসীর সুনাম রয়েছে দেশ বিদেশে। সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদেও উপজেলার কৃতি সন্তানরা দায়িত্ব পালন করেছেন, করছেন।

 

১৯৭৩ থেকে ২০২১ সাল। সংসদীয় আসনটি স্বাধীনতার পরবর্তী সাত মেয়াদ ছিল আওয়ামী লীগের দখলে। সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ-ই চার মেয়াদে এমপি এই আসন থেকে। ফলে আসনটি আওয়ামী লীগের ঘাঁটি বলা চলে। সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খানের বাড়িও এই নির্বাচনী এলাকায়।

 

গেলো রোববার (২৬ ডিসেম্বর)এ দুই উপজেলার ২১টি ইউনিয়নে নির্বাচনে ১৩ টিতেই নৌকার ভরাডুবি হয়েছে। সবচেয়ে লজ্জার ইতিহাস তৈরী হয়েছে ৪টি ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থীরা জামানত রক্ষার মতো ভোট পাননি। যদিও ২১ টি ইউনিয়নে আ’লীগের ৪ প্রার্থী ছাড়াও জামানত হারানোর তালিকায় আছেন আরও ৩৪ জন। এর মধ্যে জাতীয় পার্টি ২, জাসদ ১, ইসলামী আন্দোলন ৩, জমিয়ত ১ এবং আলীগ বিদ্রোহীসহ স্বতন্ত্র ২৭ প্রার্থী।

 

সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয়-গোলাপগঞ্জের লক্ষণাবন্দ ইউপিতে নৌকার প্রার্থীর ভোট সর্বসাকুল্যে ১৩৯টি। নৌকা প্রতীকে সম্ভবত সবচেয়ে কম ভোটের রেকর্ড এটি। জামানত হারানোর পাশাপাশি নৌকায় মাত্র ২ ভোট পড়েছে ইউনিয়নের ফুলসাইন্দ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে।

 

নৌকা প্রতীকে দ্বিতীয় সর্বিনিম্ন ভোট পড়েছে লক্ষীপাশায় ইউনিয়নে। এ ইউনিয়নে ৫ প্রার্থীর মধ্যে সর্বনিম্ন ভোট পেয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী। এখানে নৌকা প্রতীকে আ.লীগের মাহমুদ আহমদ চৌধুরী ৩৪৬ ভোট পেয়েছেন।

 

দলীয় সূত্র ও স্থানীয়দের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, তৃণমূলের পছন্দের বিপরীতে প্রার্থী চাপিয়ে দেওয়ায় ক্ষোভের বহিপ্রকাশ ঘটেছে ভোটের মাঠে। অনেক নেতাকর্মীরা দলের শাস্তির খড়গ থেকে রক্ষায় প্রার্থীকে সমর্থন করলেও ভেতরে ভেতরে নৌকার সিঁদ কেটেছেন। তাছাড়াও গ্রামীণ ভোটে প্রার্থীর জনপ্রিয়তার কাছে প্রতীক হয়ে যায় গোষ্ঠীগত, পারিবারিক প্রভাবের কারণে। এসব কারণে ভোটের মাঠে প্রভাব পড়েছে নৌকায়। তবে সবকিছুর পর আওয়ামী লীগের ঘাঁটি খ্যাত গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজারে নৌকার এমন দৈন্যতা মেনে নিতে নেতাকর্মীসহ রাজনৈতিক বৃদ্ধাদের ভাবিয়ে তুলেছে।

 

নির্বাচনী ফলাফলে প্রাপ্ত তথ্যে গোলাপগঞ্জ উপজেলার ভাদেশ্বর ইউপিতে ৫ প্রার্থীর ৩ জনে জামানত হারিয়েছেন। তারা হলেন-জাসদের লুৎফুর রহমান (মশাল) ৫৮ ভোট, স্বতন্ত্র শেখ তারেক বারী এমি (আনারস) ৬০ ভোট এবং সৈয়দ রেজাউল করীম (মোটরসাইকেল) ১৯৭৫ ভোট। জামানত রক্ষায় তাদের প্রত্যেককে ২৬৬৭ ভোট পাওয়ার প্রয়োজন ছিল। এ ইউনিয়নে ঘোড়া প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী শামীম আহমদের কাছে ৫ হাজার ৭৬১ ভোটের ব্যবধানে নৌকার প্রার্থী সেলিম উদ্দিন পরাজিত হয়েছেন। বিজয়ী প্রার্থীর প্রাপ্ত ভোট ১১ হাজার ৮৪৯টি। নৌকা পেয়েছে ৬ হাজার ৮৮ ভোট।

 

গোলাপগঞ্জ সদর ইউপিতে ২ প্রার্থী জামানত হারিয়েছেন। তারা হলেন- স্বতন্ত্র আয়নুল ইসলাম রেকল (ঘোড়া) ৭৩১ ভোট ও মওদুদ হোসেন চৌধুরী (আনারস) ৯৪৪ ভোট। জামানত রক্ষায় তাদের এক হাজার ৬০ ভোট করে পাওয়ার প্রয়োজন ছিল।  এ ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তজম্মুল আলী (নৌকা) ৩ হাজার ৫৩৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর চেয়ে ৪০৫ ভোট বেশি পেয়ে বিজয়ী হন।

 

পশ্চিম আমুড়ায় ৬ প্রার্থীর মধ্যে কেবল স্বতন্ত্র ইমরানুল ইসলাম (চশমা) ৫৫০ ভোট জামানত হারিয়েছেন। জামানত রক্ষায় তার প্রয়োজন ছিল ১২৪০ ভোট। এ ইউনিয়নে আ.লীগের সৈয়দ হাছিন আহমদ ২ হাজার ২২৬ পেয়ে বিজয়ী হন। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর চেয়ে তিনি ১০৫ ভোট বেশি পেয়ে বিজয়ী হন।

 

লক্ষীপাশা ইউপিতে ৫ প্রার্থীর মধ্যে সর্বনিম্ন ভোট পেয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী। এখানে নৌকা প্রতীকে আ.লীগের মাহমুদ আহমদ চৌধুরী ৩৪৬ ভোট পেয়েছেন। স্বতন্ত্র ইকবাল হোসেন (ঘোড়া) ৬৩৯ ভোট এবং তাজুল ইসলাম (চশমা) ৫৪৭ ভোট পেয়েছেন। ফলে তারা ৩ জনেই জামানত হারিয়েছেন। জামানত রক্ষায় তাদের প্রত্যেকের প্রয়োজন ছিল ১৫৭৫ ভোট। এ ইউনিয়নে বিজয়ী হয়েছেন আনারস প্রতীকে মাহতাব উদ্দিন ৫ হাজার ৪৮৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর চেয়ে তিনি ১২৬ ভোট বেশি পেয়েছেন।

 

ঢাকা দক্ষিণ ইউপিতে নৌকার প্রার্থীসহ ২ জনে জামানত খুইয়েছেন। ক্ষমতাসীন আ.লীগের নজরুল ইসলাম (নৌকা) ৪৭৮ ভোট পেয়েছেন। আর স্বতন্ত্র বদরুল ইসলাম (আানারস) ২ হাজার ১৯৩ ভোট। জামানত রক্ষায় তাদের প্রয়োজন ছিল ২ হাজার ২০২ ভোট। এ ইউনিয়নে স্বতন্ত্র শেখ মো. আব্দুর রহিম (ঘোড়া) ৬ হাজার ২৪৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর চেয়ে তিনি ৫৪৬ ভোট বেশি পেয়েছেন।

 

বাঘা ইউনিয়নে ৯ প্রার্থীর ৫ জনেই জামানত হারিয়েছেন। তারা হলেন- স্বতন্ত্র এনামি উদ্দিন (ঢোল) ৩৫৩ ভোট, মাহফুজ আহমদ (চশমা) ১৪৩, আব্দুল কাদের সেলিম(ঘোড়া) ৪৭৬, আবুল কালাম (মোটরসাইকেল) ৫০৩, রাহুল হোসেইন (টেবিল ফ্যান) ১৫৯৮ ভোট পেয়েছেন। জামানত রক্ষায় তাদের প্রয়োজন ছিল ২ হাজার ১৯৫ ভোট। এ ইউনিয়নে নৌকার প্রাপ্ত ভোট ৪ হাজার ৭৭৮। প্রতিদ্বন্দ্বির চেয়ে আ.লীগের প্রার্থী ১১০৪ ভোট বেশি পেয়ে বিজয়ী হন।

 

ফুলবাড়ি ইউপিতে ৫ প্রার্থীর মধ্যে কেবল স্বতন্ত্র আব্দুর রহমান খান (আনারস) ২২৮ ভোট পেয়ে জামানত হারান। জামানত রক্ষায় তার প্রয়োজন ছিল ১৮৫৯ ভোট। এ ইউপিতে আ.লীগের আব্দুল হানিফ খান (নৌকা) ৫ হাজার ৭৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর চেয়ে তিনি ১৩৯৭ ভোট বেশি পেয়েছেন।

 

উত্তর বাদেপাশা ইউপিতে ৪ প্রার্থীর মধ্যে কেবল জাতীয় পার্টির আব্দুল মজিদ সিদ্দিকী (লাঙ্গল) জামানত হারিয়েছেন। তার প্রাপ্ত ভোট ২৩৯। জামানত রক্ষায় প্রয়োজন ছিল ১৪৩৪ ভোট। এ ইউনিয়নে ১৪৩২ ভোটে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কাছে হেরেছেন আ.লীগের প্রার্থী। নৌকা প্রতীকে মোস্তাক আহমদ ৩ হাজার ২৫১ ভোট পেয়েছেন। আর স্বতন্ত্র মোহা. জাহিদ হোসাইন (আনারস) ৪ হাজার ৬৮৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন।

 

শরীফগঞ্জ ইউপিতে ৬ প্রাথী্র ২ জন জামানত হারিয়েছেন। তারা হলেন- স্বতন্ত্র এনামুল হক (চশমা) ২১৪ এবং ইসলামী আন্দোলনের রফিকুল ইসলাম (হাতপাখা) ৭৩ ভোট। জামানত রক্ষায় ১৩৭৬ ভোট পাওয়ার প্রয়োজন ছিল তাদের। এ ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থীকে টপকে ২৩৭ ভোটে বিজয়ী হয়েছে ঘোড়া। আ.লীগের এমএ মুহিন হীরা (নৌকা) ২ হাজার ৮৫৩ ভোট পেয়েছেন। আর ৩ হাজার ৯০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন ঘোড়া প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী এম কবির উদ্দিন।

 

লক্ষণাবন্দ ইউপিতে ৪ প্রার্থীর মধ্যে নৌকার প্রার্থী আব্দুল করিম খান দুই উপজেলার সব ক’টি ইউনিয়নের মধ্যে সবনিম্ন মোট ১৩৯ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন। তার সঙ্গে জামানত হারানোর তালিকায় আছেন স্বতন্ত্র মহিবুর রহমান দাইয়ান (আনারস) ৪৫ ভোট। জামানত রক্ষায় তাদের প্রয়োজন ছিল ২ হাজার ৮৩ ভোট।

 

এ ইউনিয়নে জাতীয় পার্টির প্রার্থী লাঙ্গল প্রতীকে সর্বোচ্চ ৯ হাজার ৩২ ভোট পেয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. অজি কা্ওছার (ঘোড়া) ৭ হাজার ২২৬ ভোট পেয়েছেন। জাতীয় পার্টির প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর চেয়ে ১৮০৬ ভোট বেশি এবং আ.লীগের প্রার্থীর চেয়ে ৮ হাজার ৮৯৩ ভোট বেশি পেয়ে বিজীয় হয়েছেন।

 

এছাড়া বিয়ানীবাজার উপজেলার শেওলা ইউনিয়নে ৪ প্রার্থীর মধ্যে লাঙ্গল প্রতীকে জাপার ফয়জুর রহমান ১১২ ভোট পেয়ে জামানত হারান। জামানত রক্ষায় প্রাপ্ত ভোটের ৮ ভাগের এক ভাগ ১২৪০ ভোট প্রয়োজন ছিল এ প্রার্থির। এ ইউনিয়নে আ.লীগের প্রার্থী জহুর উদ্দিন নৌকা প্রতীকে ৪ হাজার ৪০১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন।

 

মুড়িয়ায় প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র চশমা প্রতীকের প্রার্থী ফরিদ আহমদের কাছে এক হাজার ৭৫৯ ভোটে হেরেছেন নৌকার প্রার্থী হুমায়ন কবীর। তার প্রাপ্ত ভোট ৪ হাজার ২১৫টি।

 

তিলপাড়া ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৭ প্রার্থীর মধ্যে নৌকার প্রার্থীসহ ৫ জনই জামানত হারিয়েছেন। জামানত রক্ষায় প্রাথীদের ১২০৩ ভোট করে পাওয়া প্রয়োজন ছিল। সে হিসেবে এমাদ উদ্দিন (নৌকা) ৯২০ ভোট, স্বতন্ত্র কনাই মিয়া (মোটরসাইকেল) ৩১৫, ছইফ আলম (টেলিফোন) ২১৭, বেলায়েত হোসেন (অটোরিকশা) ৮৯২, রেজাউল করীম শামিম (আনারস) ৮৩২ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহবুবুর রহমান ((চশমা) ৩ হাজর ৫১৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

 

মুল্লাপুর ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মান্নানের কাছে ১৬৬৬ ভোটে হেরেছেন নৌকা প্রতীকে আ.লীগের প্রার্থী শামীম আহমদ। বিজয়ী প্রার্থী পেয়েছেন ৩০ হাজার ৪৯ ভোট। এখানে ৪ প্রার্থীর মধ্যে স্বতন্ত্র সেলিম আহমদ (মোটরসাইকেল) ৩০৯ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন। জামানত রক্ষায় তার প্রয়োজন ছিল ৮৮৭ ভোট।

 

মাথিউরায় ৩ প্রার্থীর মধ্যে স্বতন্ত্র ময়নুল ইসলাম বাবুল (মোটরসাইকেল) ৪৩২ ভোট পেয়েও জামানত হারিয়েছেন। জামানত বাঁচাতে তার প্রয়োজন ছিলে ৮৫৫ ভোট। এ ইউনিয়নে আ.লীগের আমান উদ্দিন (নৌকা) ৩ হাজার ৪৫৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর চেয়ে তিনি ৬০৭ ভোট বেশি পেয়েছেন তিনি।

 

লাউতা ইউপিতে ৬ প্রার্থীর ৩ জন জামানত হারিয়েছেন। এখানে নৌকার প্রার্থী এমএ জলিল ৯৭২ ভোটে হেরেছেন। তার প্রাপ্ত ভোট ৩ হাজার ৩৪৯টি। আর বিজয়ী দেলোয়ার হোসেন (ঘোড়া) প্রতীকে ৪ হাজার ৩২১ ভোট পেয়েছেন। এ ইউনিয়নে জামানত রক্ষায় প্রার্থীদের ১৫০৫ ভোট পাওয়ার প্রয়োজন ছিল। সে হিসেবে স্বতন্ত্র আবুল কালাম আজাদ (মোটরসাইকেল) ১৮ ভোট, ছাদিক হোসেন এপ্লু (চশমা) ৩৩ ভোট এবং ইসলামি আন্দোলনের রেজাউল করিম রাজু (হাতপাখা) ৩৬ ভোট পেয়ে জামানত হারিয়েছেন।

 

কুড়ারবাজার ইউপিতে ২ প্রার্থী জামানত হারিয়েছেন। এখানে নৌকাকে ১৩৫৩ ভোটে ধরাশায়ী করে বিজয়ী হয়েছেন আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী তুতিউর রহমান তুতা। তিনি ৩ হাজার ৩১১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। আর নৌকার প্রার্থী মোহাম্মদ বাহার উদ্দিন পেয়েছেন ১৯৫৮ ভোট। আর মোটরসাকেল প্রতীকে ১১০৪ ভোট পেয়েও জামানত হারিয়েছেন স্বতন্ত্র মো. জাকারিয়া, আব্দুল মুমিত (ঘোড়া) ৯৯৭ ভোট। জামানত রক্ষায় প্রয়োজন ছিল প্রার্থীদের ১৫৩৫ ভোট।

 

দুবাগ ইউনিয়নে ৪ প্রার্থীর কেউ জামানত না হারালেও স্বতন্ত্র প্রার্থী জালাল আহমদের কাছে ১২৩ ভোটে হেরেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম। বিজয়ী প্রার্থী পেয়েছেন ৩ হাজার ১৭৬ ভোট।

 

চারখাই ইউপিতে ৩প্রার্থীর মধ্যে জামানত হারিয়েছেন স্বতন্ত্র লেইছুর রহমান (চশমা)। তার প্রাপ্ত ভোট ২৮৩টি। জামানত রক্ষায় প্রয়োজন ছিল এক হাজার ৬৭৭ ভোট। এ ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকে আ.লীগের প্রার্থী মাহমুদ আলীকে ৩ হাজার ৬২৪ ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন স্বতন্ত্র হোসেন মুরাদ চৌধুরী। তিনি আনারস প্রতীকে ৮ হাজার ২৮১ ভোট পেয়েছেন।

 

আলীনগর ইউনিয়নে ৪ প্রার্থীর ২ জনে জামানত হারিয়েছেন। তারা হলেন-জমিয়তের মৌলানা হোসাইন আহমদ (খেজুর গাছ) ৩৯৯ ভোট, স্বতন্ত্র সাদেক আহমদ চৌধুরী (আনারস) ১৮৩ ভোট। জামানত রক্ষায় তাদের প্রয়োজন ছিল ১৪০৬ ভোট। এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আহবাবুর রহমান (নৌকা) ৫৬২ ভোট বেশি পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তারপ্রাপ্ত ভোট ৫ হাজার ৫৪৯টি।

শেয়ার করুন...

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ...

আমাদের সাথে ফেইসবুকে সংযুক্ত থাকুন

© নতুন সিলেট মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২২
Design & Developed BY Cloud Service BD
themesba-lates1749691102