মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ ::
দুবাগ আল-ইসলাহ’র নতুন কমিটি: সভাপতি কমর উদ্দিন, সম্পাদক নাসির হবিগঞ্জে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে অভিযান নবম শ্রেণির ছাত্রী অষ্টমণি সমাজ সেবা উপ-পরিচালক! ফেসবুক ব্যবহার করতে লাগবে অভিভাবকের অনুমতি আকরামের মুক্তির দাবিতে সিলেটে ছাত্রদলের বিক্ষোভ দোয়ারায় স্কুল শিক্ষার্থীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ ওসমানী হাসপাতালের ১৭ কর্মচারীকে বিদায় সংবর্ধনা ‘হাসান মার্কেটের উন্নয়নে সিসিক অতীতেও কাজ করেছে’ ‘দারিদ্র্য বিমোচনে দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর কাজ করা উচিত’ ৮২ বার পেছালো সাগর-রুনি হত্যার প্রতিবেদনের সময় বঙ্গমাতার নামে সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় নামকরণের সিদ্ধান্ত শক্তিশালী যোগাযোগ নেটওয়ার্কে এগিয়ে যাবে দেশ জকিগঞ্জে ইয়াবাসহ নারী গ্রেফতার খুলেছে শাবি, হলে ফেরা শিক্ষার্থীদের বরণ নাইজেরিয়ায় তেল শোধনাগারে বিস্ফোরণ, নিহত ২৫

যৌন নির্যাতনের শিকার ২ লাখের বেশি শিশু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
  • আপডেট : বুধবার, ৬ অক্টোবর, ২০২১
যৌন নির্যাতনের শিকার ২ লাখের বেশি শিশু - Natun Sylhet

ফ্রান্সে ১৯৫০ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ২ লাখ ১৬ হাজার শিশু ফরাসি ক্যাথলিক যাজকদের দ্বারা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। শিশুদের যৌন নির্যাতনের ঘটনা অনুসন্ধানে একটি নিরপেক্ষ কমিশন এই তথ্য প্রকাশ করেছে। শিশুদের যৌন নির্যাতনের এই তথ্য কয়েক দশক ধরে ‘নীরবতার আবরণে’ মুড়ে রাখা হয়েছিল।

এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, আজ মঙ্গলবার প্রকাশিত সারা বিশ্বে আলোড়ন তোলা প্রতিবেদনটি তৈরিতে আড়াই বছর সময় লেগেছে। এ সময়ের মধ্যে ১ লাখ ১৫ হাজার পাদরি ও গির্জা কর্মকর্তার ব্যাপারে তদন্ত চালানো হয়। প্রতিবেদনটি তৈরি হয়েছে চার্চ, আদালত এবং পুলিশের দলিলপত্রের আর্কাইভে পাওয়া তথ্য এবং যৌন নির্যাতনের শিকারদের সাক্ষাৎকারের ওপর ভিত্তি করে।

কমিশনের সদস্যদের মধ্যে ছিলেন চিকিৎসক, ইতিহাসবিদ, সমাজবিজ্ঞানী ও ধর্মতত্ত্ববিদ। আড়াই বছরে সাড়ে ছয় হাজারের বেশি সাক্ষীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।
বিশ্বব্যাপী গির্জার কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগের সত্যতা যাচাই এবং বিচারের দাবিতে ব্যাপক ক্ষোভের মধ্যে এমন প্রতিবেদন প্রকাশিত হলো।
সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন দেশে এমন কয়েকটি কেলেঙ্কারির ঘটনা ফাঁস হয়। এরপর ফরাসি ক্যাথলিক গির্জা কর্তৃপক্ষ ২০১৮ সালে ওই তদন্তের আদেশ দেয়।

তদন্ত কমিশনের সভাপতি জিন-মার্ক সাউভ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সংখ্যাগুলো সবার মধ্যে উদ্বেগ বাড়িয়েছে। এসব ঘটনা সত্যিই ভয়ংকর। প্রতিক্রিয়া দেখানো ছাড়া কোনো উপায় থাকতে পারে না। তিনি বলেন, ২০০০ সালের গোড়ার দিকে ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি নিষ্ঠুর উদাসীনতা দেখিয়েছিল ক্যাথলিক চার্চ।

ফ্রান্সের বাইশপ কনফারেন্সের প্রেসিডেন্ট এরিক ডি মৌলিনস-বিউফোর্ট এই তদন্তে পাওয়া ভয়াবহ তথ্যের বিষয়ে নিজের লজ্জা ও অনুভূতির কথা স্বীকার করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমি চাই আপনারা প্রত্যেকে সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করুন।’

প্রায় ২ হাজার ৫০০ পৃষ্ঠার প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ভুক্তভোগীর বেশিরভাগ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণির বালক। প্রতিবেদনে বলা হয়, পারিবারিক পরিবেশ এবং পরিচিতদের দ্বারা বেশি যৌন সহিংসতার ঘটনা ঘটে। শিশুরা এই পরিবেশের বাইরে সবচেয়ে বেশি নিপীড়নের শিকার হয় ক্যাথলিক চার্চে। প্রথম আলো।

শেয়ার করুন...

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ...

আমাদের সাথে ফেইসবুকে সংযুক্ত থাকুন

© নতুন সিলেট মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD
themesba-lates1749691102