রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০১:০৬ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ ::
‘বৈচিত্র্যপূর্ণ সংস্কৃতি এ দেশের অমূল্য সম্পদ’ খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে গবেষণায় গুরুত্বারোপ প্রধানমন্ত্রীর ইভ্যালির ওয়েবসাইট-অ্যাপ বন্ধ শেখঘাট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ পরিদর্শনে পরিকল্পনামন্ত্রী আন্তর্জাতিক ডিজাইন প্রতিযোগিতায় রাহুলের স্বর্ণপদক জয়  ৬শ’ কোটিতে ৩২০ কোরিয়ান এসি বাস কিনবে সরকার সৌদি জোটের হামলায় ইয়েমেনে নিহত ১৬০ সিলেটে কাল যেসব এলাকায় থাকবে না বিদ্যুৎ শেখ হাসিনা একজন স্ট্রং ক্লাইমেট ফাইটার-পরিকল্পনামন্ত্রী মহানবীর জীবনাদর্শে মুক্তি নিহিত-শফিকুর রহমান চৌধুরী শাবির নৃবিজ্ঞানের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক জাকারিয়া ছাত্রলীগের কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে গোলাপগঞ্জে আনন্দ মিছিল সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সাম্প্রদায়িকতা রুখতে হবে-্অ্যাডভোকেট জামান জুমার দিনের সুন্নাত আমল সিলেটে এবার প্লাকার্ড ও ফেস্টুন নিয়ে রাস্তায় ছাত্রলীগ

অবৈধ ২ লাখ মোবাইল ফোন বন্ধ হচ্ছে

নতুন সিলেট ডেস্ক :
  • আপডেট : শুক্রবার, ৮ অক্টোবর, ২০২১
অবৈধ ২ লাখ মোবাইল ফোন বন্ধ হচ্ছে - Natun Sylhet

ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেনটিটি রেজিস্টার (এনইআইআর) প্রযুক্তি চালু হওয়ার পর প্রথম পাঁচ দিনে দেশের নেটওয়ার্কে যুক্ত হওয়া ২ লাখ ৮ হাজার চারটি অবৈধ মোবাইল ফোন শনাক্ত হয়েছে। এসব মোবাইল ফোন যে অবৈধ সে বার্তা গ্রাহকদের দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে বেশকিছু অবৈধ মোবাইল ফোন বন্ধ করা হয়েছে। বর্তমানে ২ লাখের বেশি মোবাইল ফোন বন্ধের তালিকায় রয়েছে। পর্যায়ক্রমে এসব ফোন বন্ধ হয়ে যাবে।

দেশের বাজারে অবৈধভাবে মোবাইল ফোনের আমদানি বন্ধ, মোবাইল চুরি, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও সরকারের রাজস্ব ফাঁকি ঠেকাতে ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেনটিটি রেজিস্টার প্রযুক্তি চালু করেছে বিটিআরসি। ১ জুলাই থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত পরীক্ষামূলকভাবে চলেছে এই প্রযুক্তির কার্যক্রম। বিটিআরসি জানিয়েছে ১ অক্টোবর থেকে দেশের নেটওয়ার্কে নতুন করে আর অবৈধ ফোন সচল হচ্ছে না।

বিটিআরসি জানিয়েছে, ১ অক্টোবর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত দেশের নেটওয়ার্কে ৫ লাখ ৮৭ হাজার ৭৫৭টি মোবাইল হ্যান্ডসেট যুক্ত হয়েছে। এর মধ্যে বৈধ ফোন ৩ লাখ ৭৯ হাজার ৭৫৩টি ও অবৈধ ২ লাখ ৮ হাজার চারটি।

বিটিআরসির কমিশনার ইঞ্জিনিয়ার এ কে এম শহীদুজ্জামান বলেন, আমরা আইডেন্টিফাই করেছি এ সেটগুলো বৈধ নয়। এগুলো যে কোনো সময় বন্ধ হয়ে যেতে পারে। কিছু কিছু হ্যান্ডসেট র‍্যানডমলি বন্ধ করা শুরু করেছি, যেন গ্রাহকরা সচেতন হন যে, অবৈধ সেট কেনা যাবে না। গ্রাহকরা যেন অসুবিধায় না পড়েন তাই সব সেট একসঙ্গে বন্ধ করছি না। তাদের সময় দিচ্ছি তারা যেন হ্যান্ডসেটটি দোকান থেকে পরিবর্তন করে আনতে পারেন। নতুবা টাকা ফেরত নিয়ে আসতে পারেন। কোনোভাবেই আমরা গ্রাহকের ভোগান্তি চাই না।

শেয়ার করুন...

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ...

আমাদের সাথে ফেইসবুকে সংযুক্ত থাকুন

© নতুন সিলেট মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২১
Design & Developed BY Cloud Service BD
themesba-lates1749691102